Bangladesh Premier League T20
The fourth edition of the Bangladesh Premier League is going to take place in this coming November; BCB Media Committee chairman Jalal Yunus informed about the matter.
Latest topics
Buy Now
Sponsored
Facebook
Sponsored

মুরালির অ্যাকশনকে বৈধতা দেওয়াতেই এই আজমল-কাণ্ড!

View previous topic View next topic Go down

মুরালির অ্যাকশনকে বৈধতা দেওয়াতেই এই আজমল-কাণ্ড!

Post  nazmul07npk on Mon Feb 13, 2012 3:20 pm

'কেউ কেউ আমায় বলছেন, আমার বোলিং অ্যাকশন ত্রুটিপূর্ণ। কারণটা হলো বছরখানেক আগে আমি একটা দুর্ঘটনায় পড়েছিলাম, এরপর আইসিসি আমাকে ২৩.৫ ডিগ্রি পর্যন্ত হাত বাঁকানোর অনুমতি দেয়। এ ছাড়া কোনো সমস্যা নেই, আইসিসি আমার অ্যাকশনকে বৈধ বলে রায় দিয়েছে'_সব গোলমালের উৎপত্তি সাঈদ আজমলের এই মন্তব্যের পর। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সদ্যসমাপ্ত ৩ টেস্টের সিরিজে ২৪ উইকেট নিয়ে সিরিজসেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হয়েছিলেন পাকিস্তানের এই ডানহাতি অফস্পিনার। ম্যাচ-পরবর্তী পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে আজমলের এই বক্তব্যেই ওঠে বিতর্কের ঝড়, কারণ আইসিসি স্পিনারদের হাত বাঁকানোর অনুমতি দিয়েছে ১৫ ডিগ্রি পর্যন্ত। আইসিসির হিউম্যান মুভমেন্ট প্যানেল এবং পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের পক্ষ থেকেও জানানো হয়েছে, আজমলের বোলিং অ্যাকশন বৈধ। কিন্তু তার পরেও যে মিলছে না কিছু প্রশ্নের উত্তর!
মুত্তিয়া মুরালিধরনের নামের আগে 'বর্শা নিক্ষেপক', 'চাকার' এমন অনেক অবমাননাকর বিশেষণই ব্যবহার করেছেন বিষেণ সিং বেদী। ভারতীয় এই সাবেক স্পিনারের কথায়, আইসিসিই আসলে এই 'দানব' তৈরি করেছে, 'এমন মূর্খের মতো কাজ কিভাবে চালিয়ে যাওয়া সম্ভব? কোনো একজনের উচিত এই প্রহসনের ইতি টানা। আইসিসির উচিত বিশেষ ক্ষমতা অনুযায়ী প্রতিক্রিয়া দেখানো। সাঈদ আজমলের ব্যাপারটা তো সোজাসুজি চাকিং। তাঁর বোলিংয়ের দিকে যদি লক্ষ করেন, তাহলেই দেখবেন, তার বল করার জন্য রান-আপ নেওয়ার দরকার নেই। সে জায়গায় দাঁড়িয়েই বল ছুড়তে পারে, যেভাবে ডার্ট (ছোট তীর) ছোড়া হয়।' বেদীর মতে, মুরালিধরনকে ছাড় দেওয়ার কারণেই অবস্থা আজ এই পর্যায়ে, 'মুরালিধরনের মতো একজনকে অনুমতি দেওয়ার পর থেকেই সমস্যার শুরু। খালি চোখে কারো কি বোঝা সম্ভব যে হাত ১৫ ডিগ্রির বেশি বাঁকছে নাকি কম? এই ব্যাপারে মানুষের চোখের ওপরই ভরসা করতে হয় এবং সত্যি কথা হচ্ছে চাক করলে এক মাইল দূর থেকেও বোঝা যাবে।' ভারতের বিখ্যাত স্পিন বোলিং চতুষ্টয়ের সদস্য ও সাবেক অধিনায়ক বেদী মনে করেন, ম্যাচ পাতানোর মতো অবৈধ বোলিং অ্যাকশন পর্যবেক্ষণেও আইসিসির একটি আলাদা বিভাগ থাকা দরকার, 'ম্যাচ পাতানোর ভয়াবহতা কমিয়ে আনতে আইসিসি অনেক চেষ্টা করছে, কিন্তু অবৈধ বোলিং অ্যাকশনে বল করা কমাতে তারা কিছুই করছে না। একটা ম্যাচের ফল আগে থেকেই নির্দিষ্ট কি না, সেটা ধরা অনেকটা কঠিন। কিন্তু নাকের ডগাতেই তো অবৈধ অ্যাকশনে বল করা চলছে।' বিখ্যাত স্পিন চতুষ্টয়ের আরেক সদস্য এরাপলি্ল প্রসন্নও মনে করেন, দায়টা আইসিসিরই, 'ছেলেটা নিজেই তো বলছে যে তার হাত ২৩ ডিগ্রির বেশি বাঁকে। এখন আমার প্রশ্ন হচ্ছে, আইসিসির যে কমিটি বোলিং অ্যাকশনের বৈধতা যাচাইবাছাই করে, তারা কী করছে?'
তবে পাকিস্তানের সাবেক দুই ক্রিকেটার ইন্তিখাব আলম এবং আবদুল কাদির অবশ্য আজমলের পক্ষেই কথা বলছেন। লেগস্পিনার কাদির মনে করেন, টেলিভিশনে তাঁর বোলিং অ্যাকশন দেখেই অনেকে বিভ্রান্ত হচ্ছেন, 'আজমলের বোলিং অ্যাকশন যদি সন্দেহজনক হতো, তাহলে সে এত দিন খেলতে পারত না। আমাদের ভুলে যাওয়া উচিত হবে না সাম্প্রতিক বায়োমেকানিকস প্রযুক্তি ও বিশেষজ্ঞরাই বোলারদের ছাড়পত্র দিয়ে থাকেন এবং ২০০৯ সাল থেকেই তার বোলিং অ্যাকশন বৈধ বলে গণ্য হয়ে আসছে।' অন্যদিকে ইন্তিখাব আলম এ ব্যাপারে ইংল্যান্ডের গণমাধ্যমের ওপরই দায়টা চাপিয়েছে, 'ইংলিশ মিডিয়া তিলকে তাল করছে।' আজমলের সাবেক সতীর্থ দানেশ কানেরিয়ার কথায়, 'সে-ই আমাদের শীর্ষ বোলার এবং আমার মনে হয় তার অ্যাকশনে ত্রুটি থাকলে দলের ম্যানেজমেন্টও তাকে মাঠে নামাত না।' পিটিআই
[justify]
avatar
nazmul07npk

Posts : 191
Points : 573
Reputation : 2
Join date : 2012-01-19
Age : 25
Location : Dhaka Cantonment,Dhaka

View user profile http://www.facebook.com/mdnazmulasif

Back to top Go down

View previous topic View next topic Back to top


 
Permissions in this forum:
You cannot reply to topics in this forum